এসআর স্কুল এন্ড কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ও দপ্তরির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও স্টার ফ্লাওয়ার এসআর স্কুল এন্ড কলেজে ২০১৭ সাল থেকে এই পর্যন্ত সোনারগাঁও সরকারি কলেজের প্রভাষক শাহ আলী ও মেঘনা শিল্পনগরী উচ্চ বিদ্যালয়ে দপ্তরি ও ভাইস প্রিন্সিপাল ছাত্রীদেরকে শ্লীলতাহানি ও সিনিয়র শিক্ষক রফিকুল ইসলামের স্বেচ্ছাচারিতা ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলে স্কুলের দুই পরিচালকের তোপের মুখে পড়েছেন।

বিগত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকির শিকার হওয়া সাবেক অধ্যক্ষ সাজ্জাদুর রহমানের স্ত্রী নিশাত ফারজানা সোমা জানান, স্কুলের দুর্নীতি নিয়ে সংবাদ প্রচার হওয়ায় আমরা আমাদের সাথে হওয়া অন্যায় ও অবিচারের কথা বলায় শাহ আলী ও রফিকুল ইসলাম তাদের শানীয় সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ফোন করে হুমকি দিচ্ছি। শাহ আলী নিজেই গুন্ডাফান্ডাসহ কয়েকদিন রাস্তায় আটকে রেখে আমার স্বামীকে তারা এলাকা ছাড়ার হুমকি দিয়েছে।

এখন আমরা স্বপরিবারে হুমকির মুখে অসহায় জীবন যাপন করছি। আমি ও আমার স্বামী সোনারগাঁও স্টার ফ্লাওয়ার এসআর স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ সাজ্জাদুর রহমান বকেয়া বেতন বাদব ২ লাখ ৯৫ হাজার টাকা পাওনা আছি। এখন আমাদের টাকা দেয়ার পরিবর্তে উল্টো কাউকে কিছু না জানানোর চাপ দিচ্ছে।

উল্লেখ্য যে, গত ২০২০ সালে এক বছরে ১৮জন শিক্ষক স্ব-ইচ্ছায় চাকুরী ছেড়ে চলে যাওয়ার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি দিন দিন শিক্ষক শূন্য হয়ে যাচ্ছে। এতে করে শিক্ষার মান নিয়ে শিক্ষার্থীদের অভিবাবকরা চিন্তিত। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির সাবেক একাধিক শিক্ষক জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির পরিচালকেরা করোনা কালিন শিক্ষকদেরকে নামে মাত্র সামান্য কিছু বেতন হিসেবে টাকা দেয়।

অথচ প্রতিষ্ঠানটির পরিচালকেরা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন পুরো টাকা আদায় করেছেন। এছাড়াও অনেকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার কারণে এক এক করে এক বছরে ১৮জন শিক্ষক চাকুরি ছেড়ে চলে যান।
বাণিজ্যিক নিয়মনীতি অনুসরণ করে পরিচালিত বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সোনারগাঁ স্টার ফ্লাওয়ার এসআর স্কুল ও কলেজ সরকারি নির্দেশনা ভাঙ্গাটাই নিয়মে পরিণত করে ফেলেছে।

চকটদারি বিজ্ঞপ্তি প্রচার প্রচারণায় করে শিক্ষার্থীদের অভিভাভকদেরকে বোকা বানানোর পাশাপাশি অতিরিক্ত অর্থ নিয়ে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ ও রয়েছে স্কুল ও কলেজের পরিচালকদের বিরুদ্ধে।

সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের মেঘনা শিল্পনগরীতে গড়ে উঠা সোনারগাঁ স্টার ফ্লাওয়ার এসআর হাই স্কুলের বিরুদ্ধে গত এসএসসি-২০২০ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে পরীক্ষার্থীদের ফরম ফিলাপে এ অনিয়ম হয়েছে বলে শতাধিক অভিযোগ।
সোনারগাঁও স্টার ফ্লাওয়ার এসআর স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ (Sazzadur Rahman) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্টাটাসে বলেন, “সোনারগাঁ স্টার ফ্লাওয়ার এসআর স্কুল এন্ড কলেজের দুজন পরিচালকের কীর্তি এবং অপকীর্তি সম্পর্কে আমি নিরব স্বাক্ষী। জানতে পারলাম তারা আমার অনুপস্থিতিতে আমার এবং আমার স্ত্রীর সম্পর্কে নানা ধরণের মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য প্রচার করছে আমি যদি সরব হই, তবে কি ঘটতে পারে? আশা করি পরিচালকদ্বয় তা ভালো করেই জানেন।

কাজেই আশা করি তারা চাইবে না যে, তাদের অপকীর্তি গুলি জনসম্মুখে তুলে ধরতে বাধ্য হই”।
স্কুলের বর্তমান কয়েকজন শিক্ষার্থীদের কাছে স্কুলের অভ্যন্তরীন অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার কথা জিজ্ঞেস করলে তারা জানান, স্কুলের পরিচালক শাহ আলীর ভাগ্নে আফজালের বিরুদ্ধে স্কুলের ছাত্রীদের যৌন হয়রানি ও শ্লীলতা হানির অনেক অভিযোগ দিলেও তারা কিছুই করেনা। আর এখন নতুন যোগ হয়েছে ভাইস প্রিন্সিপাল। উনিও ছাত্রীদের বাথরুমের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। অশ্লীল কথা বলে। নিউ টেন এর সাইন্স এর যে কোন ছাত্রীকে জিজ্ঞেস তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাবেন।

স্কুলের দপ্তরী পদে থাকা আফজাল কে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি পুরো বিষয়টি মিথ্যা ও সাজানো দাবি করেন।

এই খবর গুলিও পড়তে পারেন