১০৩ বছর বয়সে করোনাকে জয় করে বেডেই বিয়ারে চুমুক বৃদ্ধার!

গোটা বিশ্ব জুড়েই অনেক বয়স্ক মানুষ করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠছেন। তাদের মধ্যে ১০০ বছর বা তার বেশি বয়সেরও অনেকে আছেন। সেই সব খবর সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সামনে এসেছে। 

তবে এবার যে বৃদ্ধার কাণ্ড সামনে এল তা মনে হয় আগে শোনা যায়নি। করোনা মুক্ত হয়ে নার্সিংহোমের বেডে শুয়েই খুলে ফেললেন বিয়ারের বোতল।যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসের জেনি স্টেনা নামের ১০৩ বছরের এক নারী অসুস্থ হয়ে নার্সিং হোমে ভর্তি হন। চিকিৎসকরা যখন জানান, তার করোনা পজিটিভের কথা, জেনি কোভিড-১৯ কী তা বুঝতেই পারেননি। তারপর তার চিকিৎসা শুরু হয়।

করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করে তিন সপ্তাহেই সুস্থ হয়ে ওঠেন জেনি। জেনি যে নার্সিংহোমে ছিলেন সেখানে আরও ৩৩ জন ভর্তি হন করোনা নিয়ে। তাদের চিকিৎসা চলছে। জেনিই প্রথম, যিনি এই নার্সিংহোম থেকে সুস্থ হয়ে ওঠেন, তাও আবার ১০৩ বছর বয়সে।

তবে এক সময় জেনির অবস্থার অবনতি হতে শুরু করেছিল। তখন তার পরিবারের সদস্যদের নার্সিংহোমে ডেকে পাঠানো হয়। এমনকি, শেষ বার জেনির সঙ্গে দেখা করার কথাও বলা হয়। কিন্তু পরিবারের সদস্য ও চিকিৎসকদের অবাক করে সুস্থ হয়ে ওঠেন জেনি। ১৩ মে নার্সিংহোমের তরফে ঘোষণা করা হয় জেনি করোনামুক্ত।

জেনির সুস্থ হয়ে ওঠার আনন্দ উদযাপন করেন নার্সিংহোমের কর্মীরা। জেনি কী খেতে চান জানতে চাওয়া হলে নার্সিংহোম কর্মীদের জেনি বলেন, তার প্রিয় বিয়ার এনে দিতে। সেই মতো এক বোতল ঠান্ডা বিয়ার এনে দেওয়া হয়। নিজেই সশব্দে সেই বোতল খুলে চুমুক দেন। সেই মুহূর্ত ক্যামেরাবন্দিও হয়। পরে তা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হয়। আর এমন এক ছবি ভাইরাল হতেও সময় নেয়নি।

এই খবর গুলিও পড়তে পারেন