ময়মনসিংহের ভালুকায় শ্রমিক বিক্ষোভ, সংঘর্ষের সময় ট্রাকচাপায় নিহত ২

গরমলি প্রতিবেদক

ময়মনসিংহের ভালুকায় মিলে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ ও বেতনের দাবিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিকরা। এ সময় মালিকপক্ষের হামলা ও ধাওয়ায় মহাসড়ক পার হয়ে পালানোর সময় ট্রাকের চাপায় দুই শ্রমিক নিহত হন।

সোমবার (৬ এপ্রিল ) সকালে উপজেলার মাস্টারবাড়ি এলাকায় ক্রাউন ওয়ার্স (প্রা.) লিমিটেডের সামনে এই ঘটনা ঘটে। দুই পক্ষের মাঝে ইটপাটকেল নিক্ষেপ, হামলার ঘটনা ঘটেছে। পরে শিল্প পুলিশ লাঠিপেটা ও টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ওই ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ২৫জন আহত হয়েছে। ওই সময় আত্মরক্ষার্থে মহাসড়ক পার হতে গিয়ে ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, বিজিএমইএ ঘোষিত বিগত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত কারখানা শর্তসাপেক্ষে ছুটি দেওয়ার পরও ক্রাউন ওয়ার্স প্রা. লি.  শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানো হয়।ওই সময় কাজে যোগদান না করায় গত রবিবার পাঁচ শতাধিক শ্রমিককে মিল কর্তৃপক্ষ ছাঁটাই করে।

সোমবার শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে এসে দেখেন গেইটের সামনে কারখানা বন্ধের নোটিশ টানানো রয়েছে। এ সময় শ্রমিকরা মিল কর্তৃপক্ষের কাছে গত মাসের বেতন দাবি করেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ আগামী ৮ এপ্রিল বেতন দিতে চাইলে শ্রমিকরা তা প্রত্যাখ্যান করে তাদের দাবি আদায়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন।

এ সময় শ্রমিকরা কারখানার দিকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে প্রথমে শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা চালায়। কিন্তু শ্রমিকরা নিয়ন্ত্রণে না আসায় পুলিশ লাঠিপেটা, ৩০ রাউন্ড টিয়ারসেল ও ৩০ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

একই সময় অ্যাডমিন বিভাগসহ কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে মিল থেকে বের হয়ে আসা স্থানীয় ভাড়াটিয়া লাঠিয়াল বাহিনী শ্রমিকদের ওপর হামলা চালিয়ে শ্রমিকদের বিভিন্ন স্থান থেকে ধরে এনে তাদেরকে বেধড়ক লাঠিপেটা করে।

ওই সময় ছবি তুলতে গেলে মিলের লাঠিয়াল বাহিনী দৈনিক যুগান্তরের স্থানীয় প্রতিনিধি জহিরুল ইসলাম জুয়েলের মোবাইল, ক্যামেরা ও আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয়।

পরে শিল্প পুলিশের সহায়তায় তা উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সময় মালিক পক্ষের ধাওয়া খেয়ে আত্মরক্ষার্থে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক পার হওয়ার সময় ঢাকাগামী একটি ট্রাকের চাপায় দুজন শ্রমিক নিহত হন।

নিহতের একজন ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার আবদুল রহিমের ছেলে ক্রাউন ওয়ার কারখানার শ্রমিক হারুন অর রশিদ। অপরজন স্কয়ার ফ্যাশনের শ্রমিক ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার চিয়ারকান্দা গ্রামের ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে জুয়েল (২৪)। হাইওয়ে পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ফাঁড়িতে নিয়ে আসেন।

শ্রমিকরা জানায়, গত রবিবার পর্যন্ত কারখানায় খোলা ছিল। পূর্বে নোটিশ ছাড়াই সোমবার সকালে কারখানায় কাজ করতে এসে দেখেন গেটে কারখানা ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধের নোটিশ টানানো রয়েছে। ওই সময় তারা বাড়ি যাওয়ার জন্য গত মাসের বেতন দাবি করলে মিল কর্তৃপক্ষ তা দিতে অনীহা প্রকাশ করে।

 শিল্প পুলিশ জোন-৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার নূরুন নবী জানান, শ্রমিকরা ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ ও বেতনের জন্য বিক্ষোভ শুরু করলে তাদেরকে শান্ত হওয়ার জন্য বলা হয়। শ্রমিকরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করলে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে।  

যোগাযোগ করা হলে ক্রাউন ওয়ার্স প্রা. লি. মিলের জেনারেল ম্যানেজার জাকারিয়া সুহেল ওই বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

এই খবর গুলিও পড়তে পারেন