বাংলাদেশি যুবকের লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:


ভারতে থাকা যুবক সাইদুর রহমানের(২২) লাশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বাংলাদেশ (বিজিবি)ও নিকট হস্তান্তর করেছে।
মৃত্যুর প্রায় ৩৯ ঘন্টা পর মঙ্গলবার রাত ৯টায় বিএসএফ-বিজিবির নিকট লাশ হস্তান্তর করেন।
নিহত সাইদুর সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বড়দল উত্তর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বড়গোপ টিলার হতদরিদ্র ঠেলাগাড়ি চালক হবি রহমানের ছেলে।,

২৮-বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বাংলাদেশ (বিজিবি) সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের লাউরগড় বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্বশীদের উপস্থিতিতে তাহিরপুর থানা পুলিশের নিকট মঙ্গলবার রাতে সীমান্তের মেইল পিলার ১২০৩ এর এইট-এস সাব পিলারে শুন্য রেখায় নির্মাণাধীন সীমান্তহাটে ভারতের মেঘালয় ষ্টেইটের শিংল ১১-ব্যাটালিয়ন ঘোমাঘাট কোম্পানী হোডকোয়ার্টারের বিএসএফ’র দায়িত্বশীলরা উপস্থিত থেকে নলিকাটা থানা পুলিশ লাশ হস্তান্তর করেন। এরপর তাহিরপুর থানা পুলিশ বিজিবি ও স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে নিহতের পরিবারের নিকট লাশ সমঝিয়ে দেন।

উল্ল্যেখ যে, সোমবার ভোরে জাদুকাটা নদীতে শ্রমিকদের সঙ্গে কয়লা কুড়াতে যান সাইদুর। এরপর সকালে তার পরিবার জানতে পারেন সীমান্তের মেইন পিলার ১২০৩ হতে প্রায় ১ হতে দেড় কি.মি. ভারতের অভ্যন্তরে মেঘালয় রাজ্যের ঘোমাঘাট বিএসএসফ পোস্টের কাছে জাদুকাটা নদীর পূর্ব তীরে বালুচরে তার লাশ পড়ে রয়েছে।

তবে কীভাবে সাইদুরের মৃত্যু হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি এবং বিএসএফের পোস্টের কাছেই কেনই বা লাশটি পড়ে রয়েছিল তাও স্পষ্ট নয়। মঙ্গলবার নিহতের পরিবার ও সীমান্তে থাকা লোকজন জানান,সোমবার দিনভর ভারতীয় বিএসএফ পোষ্টের কাছে পড়ে থাকা সাইদুরের লাশ ওইদিন সন্ধার পর মেঘালয় ষ্টেইটের শিংল জেলার ঘোমাঘাটস্থ নলিকাটা পুলিশের নিকট বিএসএফ হস্তান্তর করেন।

এরপর মঙ্গলবার সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মেঘালয়ের রাণীগড় নেয়া হয়। পরিচয় নিশ্চিত না হওয়ায় দুপুর অবধি সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার নিহতের ময়নাতদন্তে অপারগতা প্রকাশ করেন। ওই অবস্থায় বেলা পৌনে দু’টায় তাহিরপুরের লাউরগড় সাহিদাবাদের শুন্য রেখায় নির্মাণাধীন সীমান্তহাটে ২৮-বিজিবির লাউরগড় ক্যাম্প কমান্ডার-১১ বিএসএফ’র ঘোমাঘাট কোম্পানী হেডকোয়ার্টারের বিএসএফ’র মধ্যে অনির্ধারিত পতাকা বেঠক হয়।

পরবর্তীতে নিহত সাইদুরের নিজ ইউনিয়ন বড়দল উওরের জনপ্রতিনিধি ও পরিবারের সদস্যদের ডেকে নিয়ে পরিচয় শনাক্তকরণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় ২৮-বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)সুনামগঞ্জের অধিনায়ক লে.কর্ণেল মো. তছলিম এহসান বলেন, বিজিবির উপস্থিতিতে সব আইনি প্রক্রিয়া শেষে থানা পুলিশ রাতেই ওই যুবকের লাশ তার পরিবারের নিকট সমঝিয়ে দিয়েছে।

এই খবর গুলিও পড়তে পারেন